গুগল অ্যাডসেন্স (Google AdSense) থেকে আয় করতে সবাই চান। কিন্তু এই সোনার হরিণ বেশীরভাগ মানুষকেই কষ্ট দেয়। কেনোনা এর থেকে আয় করা একটু বেশী কষ্টকর। ফলে শুরুতেই হোঁচট খেয়ে বসে পরার ঘটনা প্রচুর ঘটে। তাই আসুন জেনে নেই অ্যাডসেন্স দিয়ে আয় করতে কোন ভুলগুলো আপনাকেও কষ্ট দিতে সক্ষম এবং সঠিক ব্যবহার আয় বাড়াতে সক্ষম।

 

  • অনেকেই জানেন ভালো কীওয়ার্ড (KeyWord) ব্যবহার করে অ্যাডসেন্স এর জন্য ওয়েবসাইট তৈরি করলে আয় বেশী হবে। তাই আপনি যদি সবচেয়ে বেশী পে (High Paying) করে এমন কীওয়ার্ড নিয়ে মাঠে নামেন তবে বলতেই হবে আপনার কপালে দুঃখ আছে। কেনোনা একবার চিন্তা করে দেখুন, আপনি সাইট বানালেন। অনেক কনটেন্টও (Content) ব্যবস্থা করলেন। আপনার ওয়েবসাইট পরিপূর্ণ। কিন্তু ওয়েবসাইটটি থেকে তাও কোন আয় নেই। কেনো? কারণ অ্যাডসেন্স থেকে আয় হবে ভিজিটর থাকলে। ভিজিটর কিভাবে ব্যবস্থা করবেন? এর জন্য প্রয়োজন এসইও (SEO)। আপনি কি সেদিকে নজর দিচ্ছেন? আবার একই কনটেন্ট নিয়ে থাকা আগের ওয়েবসাইটগুলো অবশ্যই এসইও করছে। আপনি কি তাদেরকে টেক্কা দেয়ার জন্য প্রস্তুত? যদি হয় তবেই নামতে পারেন।

 

  • অনেকেই আছেন অ্যাডসেন্স থেকে আয় বাড়াতেই বেশী মনোযোগ দিয়ে থাকেন। এটি আরেকটি ভুল। আপনার আয় সম্পূর্ণভাবেই ব্যবহারকারীর (User) উপর নির্ভর করে। তাই এদিকেই নজর দিন। বুঝতে চেষ্টা করুন ব্যবহারকারী আপনার সাইট থেকে কি চায়, কিভাবে চায়। সেভাবেই ব্যবস্থা করুন। আর এভাবেই আপনার অ্যাডসেন্স এর বিজ্ঞাপনগুলোর সাথে ব্যবহারকারীদের পরিচয় সম্পর্ক করিয়ে দিন। এতেই আপনার আয় বাড়বে।

 

  • অ্যাডসেন্স এর ড্যাশবোর্ড (Dashboard) এ গেলে আপনি অনেক ফিচার (Feature) দেখতে পাবেন। এর কতোগুলো আপনি ব্যবহার করেন? কি কি ব্যবহার করেন? মনে রাখবেন এই ফিচারগুলোর সঠিক ব্যবহার ছাড়া আপনি আয় বাড়াতে পারবেন না। কেনোনা অ্যাডসেন্স এর স্বয়ংক্রিয় সিস্টেম (Automatic System) আপনার সাইট সম্পর্কে যতটুকু জানবে ততোই ভালো বিজ্ঞাপন দেখাতে পারবে। আর তা তখনই সম্ভব হবে যখন আপনি নিজেই গুগল অ্যাডসেন্স কে এই ব্যপারে সহায়তা করবেন। আর বুঝতেই পারছেন এর জন্য আপনাকে অবশ্যই ফিচারগুলো ব্যবহার করতেই হবে।

 

  • অ্যাড ব্লক ফিচারটি ব্যবহার না করা আপনার জন্য আরেকটি ভুল। কেন? ধরুন আপনার ওয়েবসাইটটি বেশী পে করে এমন একটি কীওয়ার্ড এর উপর ভিত্তি করে বানানো। এখন আপনার ওয়েবসাইট এ যদি সব ক্যাটাগরির (Category) বিজ্ঞাপন দেখানো চালু থাকে তবে গুগল ব্যবহারকারীর উপর নির্ভর করে মাঝে মধ্যেই কম পে করে এমন বিজ্ঞাপনও দেখাবে। এতে অবশ্যই আপনার আয় কমে যাবে তাই নয় কি? তাই বুঝেশুনে অ্যাড ব্লক বা ক্যাটাগরি ব্লক করুন। প্রয়োজনীয় বিজ্ঞাপন দেখাতে গুগল কে সহায়তা করে আয় বাড়ান।

 

  • ভুল জায়গায় (Placement) অ্যাড বসানো অনেকেরই একটা অভ্যাসে পরিণত হয়ে গেছে। কি দরকার? সঠিক জায়গাতেই অ্যাড বসান। যাতে ব্যবহারকারী একটু ভিন্নভাবেই দেখে এবং ক্লিক করে। ভুল স্থানে অ্যাড বসিয়ে আয় বাড়ানো অন্তত অ্যাডসেন্স থেকে সম্ভব না। কেন? অ্যাডসেন্স অনেক চালাক একটি বিজ্ঞাপনী সংস্থা। তারা বিজ্ঞাপনে কে ক্লিক করেছে, ক্লিক করার পর কি করেছে তার সবই দেখে। ধরুন আপনার ভুল জায়গায় অ্যাড বসানোর কারণে কেউ অন্য কিছুতে ক্লিক করতে গিয়ে অ্যাড এ ক্লিক করে ফেলেছে। অবশ্যই সে অ্যাডটি তাই দেখবে না। ট্যাব (Browser Tab) ক্লোজ করে দিবে অথবা ফিরে আসবে। ফলে গুগল প্রথমে ক্লিক কাউন্ট করলেও পরে ঠিকই সেটা আবার ব্যাক নিবে (Invalid Click)। সেই সাথে আপনার ওয়েবসাইট চেক করতে আসবে জানার জন্য কেন ভুল ক্লিক পড়েছে। একটু ওলটপালট দেখলেই আপনার সাধের অ্যাডসেন্স যাবে। কি দরকার ভাই?

 

  • লিংক অ্যাড (Link Ad) এবং সার্চ অ্যাড (Search Ad) ব্যবহার না করে উল্টো সাধারণ অ্যাড দিয়ে ওয়েবসাইট পরিপূর্ণ করতে অনেককেই দেখেছি। এতে আপনার লাভ নয় উল্টো অ্যাডসেন্স সাসপেন্ড হতে পারে। তার চেয়ে লিংক অ্যাড এবং সার্চ অ্যাড ও ব্যবহার করুন। শুনলে হয়তো বিশ্বাস হবে না যে সাধারণ অ্যাড এর চেয়ে ছোটখাটো এই লিংক আর সার্চ অ্যাড এর সফলতার হার অনেক বেশী। তাই সব বাধ দিয়ে লিংক অ্যাড আর সার্চ অ্যাড বসানো অনেক বেশী ভালো। যেহেতু গুগল সীমানা দিয়ে রেখেছে, তাই যতটুকু সম্ভব এই লিংক অ্যাড আর সার্চ অ্যাড এর সুফল নিয়ে নিন।

আজকে এ পর্যন্তই। এরকম আরো অনেক তথ্য ও টিপস নিয়ে শিগ্রই হাজির হচ্ছি পরবর্তী পোস্ট এ। ততোক্ষণে আজকের বিষয়গুলোকেই সবচেয়ে বেশী গুরুত্ব দিয়ে ব্যবহার করে দেখুন। আয় যদি না বাড়ে অবশ্যই আমাকে জানাবেন। আয় বাড়লে অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করবেন।

Leave a Reply