একজন সফল ফ্রিল্যান্সার হতে হলে আপনাকে কিছুটা পরিশ্রম করতে হবে। যারা কম পরিশ্রমে ফ্রিল্যান্সার হয়ে অধিক আয় করতে চান তাঁরা কখনোই প্রকৃত ও সফল ফ্রিল্যান্সার হতে পারবেন না। সকল সফল ফ্রিল্যান্সারের অতীত ও বর্তমান রয়েছে কঠোর পরিশ্রমে গড়া। বড় বড় ফ্রিল্যান্স সাইট সমূহে কয়েক মিলিয়ন ফ্রিল্যান্সার কাজ করে কিন্তু এদের মাঝে কয়জন সফল ফ্রিল্যান্সার রয়েছে? হিসেব করলে দেখা যাবে প্রতি সাইট অনুযায়ী ১০ হাজার করে সফল ফ্রিল্যান্সার রয়েছে। এত ফ্রিল্যান্সার এর মাঝে এরা সফল ফ্রিল্যান্সার হয়েছে কেবল মাত্র তাঁদের পরিশ্রম ও সঠিক পদ্ধতিতে ফ্রিল্যান্সিং করার মাধ্যমে। আমরা আপনাকে আজকে সফল ফ্রিল্যান্সার হতে যে সকল করণীও তা জানাব।

 

  • ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া পাবার চেষ্টা করুনঃ আপনাকে ক্লায়েন্ট থেকে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া পেতে হলে অবশ্যই বেশী বেশী কাজের জন্য বিড করতে হবে এবং যে সব কাজ পাবেন তা সঠিক সময়ে কাজের মান ভালো রেখে ক্লায়েন্টকে হস্তান্তর করুন। ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই আপনার ক্লায়েন্টের সাথে ভালো সুসম্পর্ক রক্ষা করতে হবে। কাজের বিষয়ে ক্লায়েন্টকে সময় মত আপডেট দিন, ক্লায়েন্টের সাথে বিনয়ী থাকুন বেশী বেশী তাঁদের কথা শুনুন এবং বলুন কম, তাঁদের চাহিদা বুঝার চেষ্টা করুন। এসব কিছু ঠিক ঠাক থাকলে ক্লায়েন্ট থেকে আপনার ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া পাওয়া অনেকটাই নিশ্চিত।

 

  • প্রোফাইলে একাধিক দক্ষতা রাখার চেষ্টা করুনঃ আপনার যদি একাধিক কাজের দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি একাধিক কাজে বিড করতে পারবেন, এ ক্ষেত্রে আপনার কাজ পাওয়া ও অর্থ আয়ের সম্ভাবনাও বেড়ে যাবে।

 

  • দক্ষ হাতে সময় ব্যবস্থাপনা করুনঃ আপনার হাতে সময় নির্দিষ্ট (এক দিনে ২৪ ঘন্টা) অতএব আপনাকে এ সময় সঠিক ভাবে ব্যবহার করতে হবে। আপনার প্রোফাইলে যদি স্কিল বেশী থাকে এবং আপনি অনেক কাজ স্কিল অনুযায়ী বিড করেন সে ভাবে কাজও পেয়ে যান তাহলে সব কাজ টাইম মত করে ক্লায়েন্টকে খুশী রাখাটা আপনার জন্য কষ্ট সাপেক্ষ হয়ে যাবে। এক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই সময় কে সঠিক ব্যবস্থাপনা করতে হবে। সময়ের সঠিক ব্যবস্থাপনা আপনাকে একজন সফল ফ্রিল্যান্সার বানাতে সহায়তা করবে।

 

  • অর্জিত অর্থের সঠিক ব্যবস্থাপনাঃ আপনার যদি আয়ের চেয়ে ব্যায় বেশী হয়ে যায় তবে এক সময় আপনার হাতে আর টাকাই থাকবেনা সে ক্ষেত্রে আপনি হতাশ হয়ে পরবেন, কাজ করতে আগ্রহ পাবেন না। এটা আপনার সফল ফ্রিল্যান্সার হতে বড় বাঁধা হিসেবে কাজ করবে। অতএব অর্জিত অর্থ সঠিক কাজে ব্যায় করুন।

 

  • একটি দক্ষ দল গঠন করুনঃ কথায় আছে দশে মিলে করি কাজ হারি জিতি নাহি লাজ অথবা দশের লাঠি একের বোঝা। যাই বলুন না কেন আপনি যদি একা সব কাজের প্রেসার নিয়ে ফেলেন তাহলে সব বুমেরাং হতে বাধ্য এর থেকে আপনি যদি একটি বা কয়েকটি টিম গঠন করে কাজ সমূহ দলে দলে ভাগ করে দেন এবং কাজ সম্পূর্ণ হলে ক্লায়েন্ট কে সময় মত তা বুঝিয়ে দিতে পারেন তাহলে আপনি ভালো ফিডব্যাক পেতে পারেন এবং আপনার সময়ও অনেক গুন বেড়ে গেলো এছাড়াও আপনি এক সাথে অনেক কাজ করতেও পারবেন। বড় বড় সফল ফ্রিল্যান্সাররা দল গঠন করে কাজ করে থাকে।

 

  • ফ্রিল্যান্স ব্যবসায় সামঞ্জস্যপূর্ণ থাকুনঃ সব সময় পালাক্রমে বিড করতে থাকুন কারণ আপনাকে যেন একটি কাজ শেষে আবার বসে থাকতে না হয়। ফ্রিল্যান্স পেশা একটি চলমান পেশা। এ ক্ষেত্রে গ্যাপ বা বিরতি দেয়া যাবেনা। ফ্রিল্যান্সিং সাইটে আপনার পোর্টফলিও সব সময় আপডেট রাখুন।

Leave a Reply