বর্তমানে ভিডিও গেম খেলেন না এমন কেউ কি আছেন? মোবাইল হোক আর কম্পিউটার সবকিছুতেই এখন গেমের ছড়াছড়ি। কেমন হবে যদি এই গেম খেলে আয় করা যায় তাহলে? তবে যে শুধু গেম খেলেই আয় করা যাবে তা কিন্তু নয়। একই সাথে গেম খেলতে দক্ষতা না থাকলেও যে হবে তাও নয়। অনলাইনে হোক আর বাস্তবে, সব স্থানেই আয় করতে প্রয়োজন চেষ্টা এবং দক্ষতা। এবং আপনি যদি দক্ষ প্লেয়ার হয়ে থাকেন তবে এই সুযোগটি কাজে লাগাতে পারেন। চলুন জেনে নেই কিভাবে গেম খেলে আয় করা সম্ভব।

 

বর্তমানে কম্পিউটার এর পাশাপাশি সকল স্মার্টফোনের জন্যও ভালো ভালো গেম রয়েছে। এর ভিতর কিছু গেম রয়েছে যা ভাইরাসের মতোই মহামারীতে পরিণত হয়েছে। আর এসকল গেম নিয়ে সবসময়েই রিসার্চ চলতেই থাকে। যেমন Need For Speed, Fallout 4, Far Cry Primal, Hitman, Batman: Arkham Knight, Super Mario Bros ছাড়াও আরো অনেক। আমি যার কয়েকটি গেম এর নামই জানি মাত্র। আর এছাড়াও মোবাইল এর জন্য রয়েছে Angry Birds, Temple Run, Grand Theft Auto: San Andreas, Hitman, FIFA 16 Ultimate Team, Asphalt 8: Airborne, Real Racing 3, Need for Speed™ No Limits ইত্যাদি। এর ভিতর Need for Speed™ No Limits আমার সবচেয়ে পছন্দের একটি গেম এবং আমি এই গেমটি খেলার সময়েই এই আয়ের পদ্ধতি ব্যবহার করি।

 

কিভাবে গেম খেলে আয় করা সম্ভব?

যদি আপনি নিয়মিত গেম খেলে থাকেন তবে অবশ্যই কোন না কোন গেমের কোন না কোন অংশে কখনো অবশ্যই আটকে গিয়েছিলেন। এবং সে সময় অনেকভাবেই চেষ্টা করেছেন সেই অংশ কোনভাবে পার হয়ে যেতে। হয়নি এমন? যদি আপনার হয়ে থাকে তবে এমনওতো হতে পারে যে অন্য কেউও ঐ একই জায়গায় একই ভাবে আটকে গেছে যেখান থেকে কোন ভাবেই পার হতে পারছে না। আর এরকম হলে এমনও হতে পারে যে তারা চেষ্টা করলো ইউটিউব এ এর সমাধান খুঁজতে। আর এটাই হচ্ছে আয়ের একটি পথ। ঠিক ধরেছেন। বিভিন্ন লেভেল পার করার দৃশ ধারণ করে তা ইউটিউব এ শেয়ার করার মাধ্যমে আপনি আয় করার সুযোগ নিতে পারেন। আর ঠিক যা বলেছিলাম। এখানেও তাই আপনাকে গেম খেলতে দক্ষ হতে হবে। দক্ষ হতে পারলেই আপনি জনপ্রিয় কিছু গেম বাছাই করে সেগুলোর বিভিন্ন লেভেল পার করার দৃশ ধারণ করে আপনার গেম আপডেট বিষয়ক ইউটিউব চ্যানেলে শেয়ার করতে পারেন এবং ভিডিওগুলো মনেটাইজ করার মাধ্যমে আয় করতে পারেন।

 

ভাবছেন কতই বা ভিজিটর আসতে পারে? ইউটিউবে একটি সেকশনই আছে (YouTube Gaming) শুধু গেমের জন্য যেখানে বিভিন্ন গেমের লেভেল পার করার ভিডিও থেকে শুরু করে রিভিউ, ডিভাইস ভিত্তিক গেমের পারফর্মেন্স ইত্যাদি দেখা যায়। এবং আপনার তৈরি করা ভিডিও ও সেখানে চলে যেতে পারে। আর কিছু জনপ্রিয় গেমের বিষয়ে তৈরি করা ভিডিওতো অনেক আগেই মিলিয়ন ভিউ পার করে ফেলেছে। তাই আপনি যদি মনে করেন আপনিও পারবেন দক্ষতার সাথে এই কাজটি করতে তাহলে এখনই নেমে যেতে পারেন গেম খেলতে। কম্পিউটার থেকে গেম খেলার দৃশ ধারণ করা সহজ হলেও মোবাইল থেকে তা করা আগে কঠিনই ছিলো কিন্তু সম্ভব। সেই সাথে Android ডিভাইসের জন্য গুগল প্লে অ্যাপটি আপডেট করে নিয়ে এই অ্যাপ ব্যবহার করেও আপনি দৃশ্যগুলো ধারণ করতে পারবেন। এর জন্য অ্যাপটি ওপেন করে যেই গেম রেকর্ড করতে চান সেই গেমের অপশন এ গিয়ে রেকর্ড অপশন এ ক্লিক করুন, গেম চালু হয়ে যাবে। এবং আপনি চাইলে কীরকম ভাবে ভিডিও সেভ হবে তাও নির্ধারণ করতে পারবেন। যেমন ভিডিও কোয়ালিটি, সাউন্ড একই সাথে আপনার নিজের ভিডিও যা ফ্রন্ট ক্যামেরা ব্যবহার করে ধারণ করা হবে।

 

এই পোস্ট থেকে জেনে গিয়েছেন ভিডিও তৈরি করা এবং সে বিষয়ক একটি আইডিয়া। যদি ভিডিও থেকে কিভাবে মনেটাইজ করে আয় করা যায় তা জানতে চান তবে “ইউটিউব থেকে অর্থ আয়” নিয়ে পোস্টটি পড়তে পারেন।

পরবর্তী পোস্টঃ মোবাইল থেকে গেম খেলে আয় – ইউটিউব গেমিং গাইড

 

এই ভিডিওটি উদাহারন হিসেবে দেখতে পারেন

 

Leave a Reply