Posts From মঈন উদ্দিন আহমেদ টিপু

ফ্রীল্যান্সিং করতে কাজ শিখতে চাচ্ছেন? আপনি কোন বিষয়ের উপর কাজ শিখতে চাচ্ছেন সেটা কি বাছাই করেছেন? এখন ভালো ট্রেনিং সেন্টার খুঁজতে চাচ্ছেন? তাহলে এই পোস্টটি কাজে আসতে পারে। এখানে নিয়মিত ভালো ট্রেনিং সেন্টার সম্পর্কে তথ্য ও বিবরণ উল্লেখ করা হবে।

নতুন যারা ইউটিউব নিয়ে কাজ করতে আসতে চান তাদের বেশীরভাগই যে সমস্যাটি সবার প্রথমে ফেস করেন তা হচ্ছে ইউটিউব চ্যানেল আইডিয়া বাছাই করা। ঠিক কোন আইডিয়া নিয়ে কাজ করা যায় বা কি কি ইউটিউব চ্যানেল আইডিয়া রয়েছে যেগুলো নিয়ে ভিডিও তৈরি

কিভাবে ফ্রীল্যান্সিং শিখতে পারবো? প্রশ্নটির উত্তর অনেকেই জানতে চান। কেননা বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় আয়ের একটি মাধ্যম ধরা হয় ফ্রীল্যান্সিংকে। দিন দিন এর চাহিদা এবং জনপ্রিয়তা বেড়েই যাচ্ছে। যার কারণে অলিতে গলিতে এখন ফ্রীল্যান্সিং ট্রেনিং সেন্টার গড়ে উঠছে। কিন্তু এসকল ফ্রীল্যান্সিং

অনেকেই জানতে চান অনলাইনের ফ্রীল্যান্স জব আইডিয়া নিয়ে। ফ্রীল্যান্সিং এ কি কি করা যায় এবং সে অনুযায়ী কোন কাজ শিখা যায়। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে অনলাইনে করা যায় এমন কাজের লিস্ট করা সম্ভব নয়। কেনোনা প্রায় সব কাজই অনলাইনে করা বা

অনেকেই জানতে চান অনলাইনের ফ্রীল্যান্স জব আইডিয়া নিয়ে। ফ্রীল্যান্সিং এ কি কি করা যায় এবং সে অনুযায়ী কোন কাজ শিখা যায়। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে অনলাইনে করা যায় এমন কাজের লিস্ট করা সম্ভব নয়। কেনোনা প্রায় সব কাজই অনলাইনে করা বা

ফ্রীল্যান্সিং করতে চাই কিন্তু কোন কাজ পারি না আমি। এই কথাটি অনেকবার অনেককে বলতে শুনেছি। কিন্তু ফ্রীল্যান্সিং করতে হলে কোন না কোন কাজ যেহেতু জানতেই হবে সেহেতু কি করা যায়? আর আপনি আসলেই কোন কাজ পারেন না? আমাকে একটু বলুনতো

ওয়েবসাইট থেকে আয় নেই – কেন এবং সমাধান ওয়েবসাইট থেকে অনেকভাবেই আয় করা সম্ভব বলে অনেকেই অর্থ খরচ করে সুন্দর ওয়েবসাইট তৈরি করেও বলেন ওয়েবসাইট থেকে আয় নেই বা সঠিক আয়ের পথসমূহ ওয়েবসাইটে ব্যবহার করতে পারছেন না। যেমন গুগল অ্যাডসেন্স

আপনারা যারা ইউটিউবে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করে থাকেন তাদের সকলেই হয়তোবা ভিডিও এর ভিউ না হওয়া নিয়ে সমস্যা ফেস করেছেন। হয়তোবা তার ভিতর অনেক ভালো মানের ভিডিও ছিলো যা ভালো র‍্যাঙ্ক পাওয়ার যোগ্যতা রাখে। তবুও ভিডিও র‍্যাঙ্ক না হওয়ায় হতাশ।

আমাদের আগের পোস্টে (গেম খেলে আয় করুন) বলেছিলাম যে মোবাইল থেকে গেম খেলে আয় করা যায়। এই পোস্টে সেই বিষয়েই আরো বিস্তারিত বলবো যা আপনাদের পুরো ব্যাপারটি বুঝতে সহায়তা করবে এবং সেই সাথে কিভাবে গেম রেকর্ড, আপলোড থেকে শুরু করে

ফ্রীল্যান্সিং শিখতে চাচ্ছেন? শুরু করবেন কিভাবে তা নিয়ে অনিশ্চিত? ভাবছেন কিভাবে কোথায় শুরু করবেন এবং কোথায় ট্রেনিং নিলে ভালো শিখতে পারবেন? তাহলে এই পোস্টটি আপনার জন্যই। কারণ ফ্রীল্যান্সার হিসেবে কাজ করতে চাইলে আগেই আপনার কিছু বিষয় জেনে নেয়া উচিৎ আর

বর্তমানে ভিডিও গেম খেলেন না এমন কেউ কি আছেন? মোবাইল হোক আর কম্পিউটার সবকিছুতেই এখন গেমের ছড়াছড়ি। কেমন হবে যদি এই গেম খেলে আয় করা যায় তাহলে? তবে যে শুধু গেম খেলেই আয় করা যাবে তা কিন্তু নয়। একই সাথে

অনেক আগে থেকেই অ্যাডসেন্স অবৈধ ক্লিক যাচাই বাছাই করা হলেও তা সম্পর্কে কোন রিপোর্ট দেয়া হতো না কিন্তু বর্তমানে তা রিপোর্টে দেখানো হয়। আর এরপর থেকেই অনেকেই এ বিষয়ে ভয় পাচ্ছেন এবং সঠিক নিয়ম কানুন অনুসরণ না করার কারণে আয়কৃত

অ্যাডসেন্স থেকে কতো আয় করা সম্ভব? অ্যাডসেন্স নিয়ে যারা কাজ করেন তাদের প্রায় সকলেই এই প্রশ্নটি সবচেয়ে বেশী শুনে থাকেন। প্রশ্নটি যদিও সঠিক এবং সকলের জানতে চাওয়ার যুক্তিও আছে। কিন্তু এর সঠিক উত্তর দেয়া এক অর্থে অসম্ভব। কারণ অ্যাডসেন্স থেকে

ইউটিউব থেকে অর্থ আয় করা যায় তা এখন প্রায় সবাই কম বেশী জানেন। আসলেই তা যায় বলেই প্রায় অনেকেই ইউটিউব থেকে আয় করে তাদের জীবিকা নির্বাহ করে যাচ্ছে। তবে ইউটিউব এ ভিডিও আপলোড করলেই আয় হবে তা কিন্তু নয়। এতোটা

অ্যাডসেন্স নিয়ে অনেকের মনেই অনেক প্রশ্ন জমে আছে। আর এর বেশীরভাগ প্রশ্নই খুবই কমন। প্রায় সবারই একই প্রশ্ন এবং সেগুলোরই উত্তর দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে এখানে। যদি অন্য কোন প্রশ্ন আপনার জানার থাকে আমাদেরকে প্রশ্ন করতে পারেন। যতদ্রুত সম্ভব আমরা

অ্যাডসেন্স সম্পর্কে অনেকেই জানেন এবং অনেকেই অ্যাডসেন্স নিয়ে কাজও করেন। কিন্তু আপনি কি অ্যাডসেন্স এর ফিচারসমূহ সম্পর্কে জানেন? সাধারণত গুগল অ্যাডসেন্স কয়েকধরণের বিজ্ঞাপন দেখায় তবে অনেকেই একটি বা দুইটি সম্পর্কেই জানেন শুধু। আর অন্য ফিচারসমূহ ব্যবহার না করাতে লাভ হারাচ্ছেন।

ফ্রীল্যান্সিং করে যদি আয় করতে চান তবে প্রথমেই আপনাকে জানতে হবে ফ্রীল্যান্সিং আসলে কি এবং কেন। কেনোনা সাধারণ ইন্টারনেট ব্যবহার আর ফ্রীল্যান্সিং এক না। আর অনেকেই মনে করেন এখানে শুধু ইন্টারনেট এ ঘুরে বেড়ালেই আয় করা যায়। কিন্তু অনেকেই এটা

যেকোনো ব্লগের জীবনই হচ্ছে ভিজিটর। আর ভিজিটরের পরিমাণ বৃদ্ধি করতে সবাই কোন না কোন উপায় ব্যবহার করে থাকেন। তবে বর্তমানে ভিজিটর বৃদ্ধি করতে সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি মাধ্যম হচ্ছে ফেসবুক। অনেকেই ফেসবুক পেইজ, গ্রুপ ইত্যাদি ব্যবহার করেই ব্লগের ভিজিটর বৃদ্ধি করছেন। একই

আপনি হয়তোবা আপনার ব্লগের ভিজিটর বৃদ্ধি করতে সবকিছুই করছেন। আরো অনেকেই করছে। কিন্তু এতো ভিড়ের ভিতর ভিজিটরদের আকর্ষণ করার মতো পর্যাপ্ত কিছু হয়তোবা করছেন না। ফলে আপনি ভিজিটর হারাচ্ছেন। কিন্তু চাইলে আপনি খুব সহজেই ফেসবুক ব্যবহার করে ভিজিটরদের দৃষ্টি আকর্ষণ

দক্ষ ফ্রীল্যান্সার হওয়া আসলেই একটু কঠিন বটে। সময় নিয়ে ধীরে ধীরেই দক্ষতা অর্জন করা সম্ভব। তবে শুধু বসে থেকেই তা সম্ভব না। তাই অল্প অল্প করেই এগিয়ে যেতে হবে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে। এর জন্য প্রয়োজন কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে যেতে সময় দেয়া এবং