অ্যাডসেন্স

আপনারা যারা ইউটিউবে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করে থাকেন তাদের সকলেই হয়তোবা ভিডিও এর ভিউ না হওয়া নিয়ে সমস্যা ফেস করেছেন। হয়তোবা তার ভিতর অনেক ভালো মানের ভিডিও ছিলো যা ভালো র‍্যাঙ্ক পাওয়ার যোগ্যতা রাখে। তবুও ভিডিও র‍্যাঙ্ক না হওয়ায় হতাশ।

আমাদের আগের পোস্টে (গেম খেলে আয় করুন) বলেছিলাম যে মোবাইল থেকে গেম খেলে আয় করা যায়। এই পোস্টে সেই বিষয়েই আরো বিস্তারিত বলবো যা আপনাদের পুরো ব্যাপারটি বুঝতে সহায়তা করবে এবং সেই সাথে কিভাবে গেম রেকর্ড, আপলোড থেকে শুরু করে

অনেক আগে থেকেই অ্যাডসেন্স অবৈধ ক্লিক যাচাই বাছাই করা হলেও তা সম্পর্কে কোন রিপোর্ট দেয়া হতো না কিন্তু বর্তমানে তা রিপোর্টে দেখানো হয়। আর এরপর থেকেই অনেকেই এ বিষয়ে ভয় পাচ্ছেন এবং সঠিক নিয়ম কানুন অনুসরণ না করার কারণে আয়কৃত

অ্যাডসেন্স থেকে কতো আয় করা সম্ভব? অ্যাডসেন্স নিয়ে যারা কাজ করেন তাদের প্রায় সকলেই এই প্রশ্নটি সবচেয়ে বেশী শুনে থাকেন। প্রশ্নটি যদিও সঠিক এবং সকলের জানতে চাওয়ার যুক্তিও আছে। কিন্তু এর সঠিক উত্তর দেয়া এক অর্থে অসম্ভব। কারণ অ্যাডসেন্স থেকে

ইউটিউব থেকে অর্থ আয় করা যায় তা এখন প্রায় সবাই কম বেশী জানেন। আসলেই তা যায় বলেই প্রায় অনেকেই ইউটিউব থেকে আয় করে তাদের জীবিকা নির্বাহ করে যাচ্ছে। তবে ইউটিউব এ ভিডিও আপলোড করলেই আয় হবে তা কিন্তু নয়। এতোটা

অ্যাডসেন্স নিয়ে অনেকের মনেই অনেক প্রশ্ন জমে আছে। আর এর বেশীরভাগ প্রশ্নই খুবই কমন। প্রায় সবারই একই প্রশ্ন এবং সেগুলোরই উত্তর দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে এখানে। যদি অন্য কোন প্রশ্ন আপনার জানার থাকে আমাদেরকে প্রশ্ন করতে পারেন। যতদ্রুত সম্ভব আমরা

অ্যাডসেন্স সম্পর্কে অনেকেই জানেন এবং অনেকেই অ্যাডসেন্স নিয়ে কাজও করেন। কিন্তু আপনি কি অ্যাডসেন্স এর ফিচারসমূহ সম্পর্কে জানেন? সাধারণত গুগল অ্যাডসেন্স কয়েকধরণের বিজ্ঞাপন দেখায় তবে অনেকেই একটি বা দুইটি সম্পর্কেই জানেন শুধু। আর অন্য ফিচারসমূহ ব্যবহার না করাতে লাভ হারাচ্ছেন।

আপনার একটি ভালো ওয়েবসাইট বা ব্লগ আছে এবং আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগে অ্যাডসেন্স এর বিজ্ঞাপনও আছে। আপনি নিয়মিত কনটেন্টও (Content) তৈরি করছেন। কিন্তু ওয়েবসাইট এ সব থাকা সত্ত্বেও শুধু ভিজিটর (Visitor/Traffic) বা ব্যবহারকারী (User) নেই। এতে আপনার ওয়েবসাইটটাই বৃথা। এবং

অ্যাডসেন্স (AdSense) থেকে আয় করতে চাইলে কোন রকম একটি ওয়েবসাইট (Website) বা ব্লগ (Blog) তৈরি করে সেখানে কনটেন্ট (Content) যোগ করে দিয়ে ভিজিটর (Visitor) পাঠাতে থাকলেই সফল হওয়া যায় না। যদি আপনার ওয়েবসাইট ব্যবহারকারীদের আকৃষ্ট করতে সক্ষম না হয় তবে

আমরা আগের পোস্ট থেকে জানলাম মাত্র ৫ টি ব্যাপার সঠিক ভাবে মেনে চলতে পারলে অ্যাডসেন্স (AdSense) ব্যবহার করে সফল হওয়া যায়। এখন কথা হচ্ছে কিভাবে এই সূত্রটি সঠিক ভাবে ব্যবহার করতে হবে এবং প্রতিটা পয়েন্ট এর কি কি ব্যবহার রয়েছে।

অ্যাডসেন্স (AdSense) ব্যবহার করা সহজ হলেও সফল হওয়া অনেক কঠিন বটে। আপনি যদি অ্যাডসেন্স ব্যবহার করে থাকেন তবে এতদিনে আপনি অবশ্যই তা টের পেয়েছেন। কিন্তু কথা হচ্ছে তাহলে কিভাবে গুগল অ্যাডসেন্স ব্যবহার করে সফল হওয়া যায়? আসলে অ্যাডসেন্স ব্যবহার করে

গুগল অ্যাডসেন্স (Google AdSense) সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি অনলাইন আয়ের মাধ্যম। তাই অনলাইনে আয় করতে আসা প্রায় সকলেই একবার গুগল অ্যাডসেন্স নিয়ে সামনে যাওয়ার চেষ্টা করেন তবে প্রথমেই তাদের হার মানতে হয়। কারণ দেখা যায় গুগল অ্যাডসেন্স বারবারই তাদের ওয়েবসাইট বাতিল

বর্তমানে বেশীরভাগ ওয়েবসাইট ডিজাইন করা হয় ওয়ার্ডপ্রেস (WordPress) সিএমএস (CMS) ব্যবহার করে। কারণ এই সিএমএসকে যেকোনোভাবে কাস্টমাইজ (Customize) করা যায়, যেকোনো ফাংশন (Function) ব্যবহার করা যায় এবং বিভিন্ন কাজের জন্য অনেক প্লাগিন (Plugin) রয়েছে যা ব্যবহার করে সহজেই একটি ওয়েবসাইট

গুগল অ্যাডসেন্স (Google AdSense) থেকে আয় করতে সবাই চান। কিন্তু এই সোনার হরিণ বেশীরভাগ মানুষকেই কষ্ট দেয়। কেনোনা এর থেকে আয় করা একটু বেশী কষ্টকর। ফলে শুরুতেই হোঁচট খেয়ে বসে পরার ঘটনা প্রচুর ঘটে। তাই আসুন জেনে নেই অ্যাডসেন্স দিয়ে

আপনি যদি অ্যাডসেন্স (AdSense) এ নতুন অ্যাকাউন্ট করতে যান বা আপনার অ্যাকাউন্ট যদি নতুন হয় তবে অবশ্যই মাথায় রাখবেন যে আপনার পেমেন্ট এর নিরাপত্তার জন্য গুগল আপনার ঠিকানা ভেরিফাই করবে। যেহেতু গুগল (Google) পেমেন্ট করার জন্য সাধারণত চেক (Check) পাঠিয়ে থাকে

অ্যাডসেন্স (AdSense) থেকে ভালো আয় করতে সঠিক স্থানে (Placement) অ্যাড (Ad) বসানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেনোনা যদি অ্যাডগুলো ভিজিটররা নাই দেখে বা ক্লিক করে তাহলে আয় হবে কোথা থেকে? আর কোথায় বসালে ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে তা নিয়মিত পরীক্ষা নিরিক্ষা করলেই

ওয়েবসাইট থেকে অর্থ আয়ের জন্য গুগল অ্যাডসেন্স (Google AdSense) সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি মাধ্যম হলেও একই সাথে ভয়ংকর ও বটে। অনেক সময় সাধারণ একটু ভুলের কারণেও আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড হতে পারে। আবার অনেক সময় জেনে শুনে ইচ্ছেকৃত করা কিছু কাজের

অনেকেই সঠিকভাবে ইউটিউব এ অ্যাডসেন্স (AdSense) অ্যাকাউন্ট যুক্ত করতে সমস্যায় পরে যান। ফলে অনেক সময় ইউটিউব থেকে আয়কৃত অর্থ অ্যাডসেন্স এ যুক্ত হয় না। তাই এখানে ইউটিউব এ অ্যাডসেন্স এর জন্য অ্যাপ্লাই করা থেকে অ্যাডসেন্স যুক্ত করার নিয়মগুলো আলোচনা করা

অনেক কথাইতো হলো। এবার চলুন আমরা অ্যাডসেন্স (AdSense) এর জন্য একটি ওয়েবসাইট তৈরি করি। যেখানে আমরা প্রচুর ভিজিটর পাবো এবং সেই সাথে অ্যাডসেন্স থেকে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে আয়ও করতে পারবো। তবে এ জন্য আমাদের কয়েকটি বিষয় প্রথমেই জানতে হবে। সেটা হচ্ছে

অনেকেই গুগল অ্যাডসেন্স (Google AdSense) ব্যবহার করেন এবং সবসময় লক্ষ্য করেন যে এর থেকে আয় হচ্ছে অনেক কম। আবার বিজ্ঞাপনে ক্লিক ও হচ্ছে অনেক কম। অথবা প্রতি ক্লিক এ খুবই অল্প পরিমাণ আয় হচ্ছে। যা গুগল অ্যাডসেন্স থেকে আয়ের অনুপাতের