FREELANCE PROFILE

ফ্রিলেন্সার হিসেবে আদর্শ প্রোফাইল যেভাবে বানাবেন

by Moin Uddin Ahmed Tipu
85 views

ফ্রিলেন্সার হিসেবে কাজ করতে হলে সবছে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে হচ্ছে ফ্রিলেন্সার প্রোফাইল। আপনার প্রোফাইল দেখেই ক্লায়েন্ট আপনাকে কাজ দিবে কিনা সেটা ঠিক করবে। অতএব কাজ শুরুকরার আগে  আপনাকে একটি আদর্শ প্রোফাইল তৈরি করতে হবে। একটি আদর্শ প্রফাই তৈরি করতে হলে নিছের ধাপ সমূহ অনুসরণ করুণঃ
১। প্রথমেই আপনাকে একটি ইউজার নেম বেছে নিতে হবেঃ ফ্রিলেন্সিং শুরুকরার আগে প্রথমে আপনাকে একটি সুন্দর ও আকর্ষণীয় সহজ ইউজার নেম বেছে নিতে হবে। ইউজার নাম বেছে নিতে গেলে আপনাকে আরেকটি জিনিস মাথায় রাখতে হবে এটি যেন অবশ্যই প্রফেশনাল হয়। যেমন আপনি যদি একজন প্রোগ্রামার হিসেবে ফ্রিলান্সিং কাজ করতে চান তবে আপনার ইউজার নামটি যদি হয় কোড মাস্টার তবে আপনার ক্লায়েন্ট এটি দেখে প্রথমেই আকর্ষিত হবে।
২। সুন্দর একটি ট্যাগ লাইন ব্যাবহার করুনঃ ট্যাগ লাইনের মাধ্যমে আপনি এক সেন্টেন্সের মাধ্যমে আপনার প্রাথমিক পরিচয় তুলে ধরতে পারবেন।
৩। গঠনমূলক বর্ণনাঃ সকল ফ্রিলেন্সিং সাইট আপনার প্রোফাইলে আপনার কাজের বিষয়ে অর্থাৎ আপনি কি কাজ পারেন এবং কর্ম ক্ষেত্রে আপনি কেমন প্রফেশনাল তাঁর একটি বর্ণনা দিতে বলে। এ বর্ণনা আপনি খুব সাবধানে লিখবেন এবং আপনি যা পারেন এবং আপনার কাজের ধারা আপনি সুন্দর ভাবে লিখবেন ক্লায়েন্ট যদি আপনার প্রোফাইল ভিজিট করতে এসে ইমপ্রেসড হয়।
৪। প্রফেশনাল দেখতে ছবি সংযুক্ত করুনঃ আপনি আপনার ছবি সংযুক্তির জায়গাটি খালি রাখবেন না। আপনাকে অবশ্যই ছবি সংযুক্ত করতে হবে তবে এক্ষেত্রে মনে রাখবেন ছবিটি যেন প্রফেশনাল লুকের হয় কোন গ্রাফিক্স বা আনপ্রফেশনাল  কিছু সংযুক্ত করবেন না।
৫। আপনার স্কিল সংযুক্ত করুনঃ সব ফ্রিলেন্সিং সাইটে কাজ করতে গেলে আপনাকে প্রথমে আপনার প্রোফাইলে স্কিল সংযুক্ত করতে বলবে। এখানে আপনি অবশ্যই খালি রাখবেন না কারণ আপনি কি কি কাজ পারেন তা এখানে উল্লেখ থাকবে। একজন ক্লায়েন্ট আপনার প্রোফাইলে এসে যদি দেখে আপনার কোন স্কিল নেই তবে আপনার কাজ পাবার সম্ভাবনা ০% হয়ে যাবে। অতএব যে যে কাজ পারেন সেই সেই কাজ দিয়ে স্কিল সেকশান সাজিয়ে তুলুন।
৬। পোর্টফলিওঃ আপনি যদি গ্রাফিক ডিজাইন, ওয়েবসাইট ডিজাইন অথবা ফটোশপ সহ অন্যান্য ক্রিয়েটিভ কাজ করেন তবে অবশ্যই আপনার প্রোফাইলে সেসব কাজের কিছু স্যাম্পল রেখে দিবেন আপনার পোর্টফলিওতে।
৭। ক্লায়েন্ট থেকে যেসব ফিডব্যাক পাবেনঃ আপনি যখন কাজ করা শুরু করবেন তখন আপনার ক্লায়েন্ট আপনার কাজ পেয়ে যে মন্তব্য করবে তাকেই ফিডব্যাক বলা হয়। আপনি যতবেশী ফিডব্যাকের অধিকারী হবেন তত বেশী আপনার প্রোফাইল শক্তিশালী হবে।

Related Posts

Leave a Comment